Tag Archives: চিরকুট

ফেসবুক চিরকুট

আনু মুহাম্মদ: আমরা আরো শ্লোগান যোগ করতে পারি। যেমন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা: যুদ্ধাপরাধী ছাড়বো না। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা: ধর্ষকদের ছাড়বো না। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা: লুটেরাদের ছাড়বো না। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা: বাংলাদেশ ছাড়বো না। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা: মালিকানা ছাড়বো না ‘জবাই করা’ ‘চামড়াতোলা’, ‘নাশতা করা’ মার্কা শ্লোগান আমাদের হতে পারে না। (১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৩)

আজফার হোসেন: Yes, the power of the people is stronger than the people in power! Long live the Shahbagh movement! (১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৩)

শাহেদ আলম: সত্যিকারের বিপ্লব কখনো প্রটেকশন আর পুলিশি সহায়তায় হয় না। এটাই বিপ্লব বা জাগরণের শাশ্বত রূপ। প্রটেকশনে হয় তোষামোদি আর প্রপাগান্ডা। শাহবাগ তারুণ্য এখনো শাবক। কেবল আত্মার পর্দাগুলো খুলে দিয়েছে। বুঝতে শিখছে আমরা কি চাই। আমাদের চাওয়াগুলো না পেলেই এই শাহবাগ প্রটেকশনের বাইরে চলে আসবে। টগবগে তরুণের মত হুঙ্কার ছাড়বে তখনই তুলে নেয়া হবে যাবতীয় প্রটেকশন আর নিরাপত্তা। আসল লড়াইটা সেখান থেকেই শুরু হবে। আমাদের শাহবাগ গত ৭ দিনে সবেমাত্র কৈশোরে পা দিয়েছে। আরো ২/৪ দিন পর যৌবনে পা দেবে। চলুন আমরা শাহবাগের সাথে থাকি। এই শাহবাগ কখনো অপরাধের সাথে আপোস করবে না। আমি পরিষ্কার দেখতে পাচ্ছি, শুধু বলবো, শাহবাগকে একটু ছেড়ে দাও, ও যেন বাইরের দুনিয়াটা দেখতে পারে। না হলে বাস্তবতা শিখবে না। এখনো শাহবাগ আবেগী। আবেগ পূরণ না হলেই হবে আসল প্রতিবাদ। সেই প্রতিবাদেই আসবে মুক্তি। জয় শাহবাগ। (১১ফেব্রুয়ারি ২০১৩)

শাকিলা সিমকি: উনিশ শ একাত্তরের বন্দুক

দুই হাজার তেরো সালে ফেসবুক। (১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৩)

রফিকুল ইসলাম: ইসলাম আর জামাতরে এক কইরা দেখার যে সেকুলার প্রবণতা, সেইটাই উল্টাভাবে জামাতরে আরো সুবিধা কইরা দিছে।  সুতরাং, সাধু সাবধান! (১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৩)